ডিগ্রী ২য় বর্ষ ২০২১ ইসলামিক স্টাডিজ ৪র্থ পত্র স্পেশাল শর্ট সাজেশন রেডি আছে নিতে চাইলে ম্যাসেজ করুন। হেল্পলাইন নম্বর: ০১৯৩৩০৮৯৬৪৯
Welcome To TopSuggestion

সমাজতন্ত্র কী

সমাজতন্ত্র কী

ভূমিকাঃ সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সবচেয়ে বড় ও গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান হল রাষ্ট্র। সামাজিক ও রাজনৈতিক শৃঙ্খলা স্থাপন এবং সকল নাগরিকের স্বার্থ রক্ষার ক্ষেত্রে রাষ্ট্রের নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন কাঙ্খিত। প্রাচীনকালে- ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র নগর নিয়ে নগর রাষ্ট্র গঠিত হত। এসব নগর রাষ্ট্রের শাসনকার্যে নাগরিকগণ সরাসরিভাবে অংশগ্রহণ করত। আধুনিক রাষ্ট্র বিশাল আকৃতির এবং এর জনসংখ্যা অনেক বেশি। যার ফলে আধুনিককালে জনগণ নির্বাচিত প্রতিনিধির মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় কাজে পরোক্ষভাবে অংশ নেয়। আধুনিক রাষ্ট্রকে কেন্দ্র করে নাগরিক জীবনের চরম অভিব্যক্তির প্রকাশ ঘটে। রাষ্ট্রের সাথে নাগরিকের সম্পর্ক অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ। এ প্রসঙ্গে রাষ্ট্রবিজ্ঞানের জনক এরিস্টটল বলেন, “রাষ্ট্রের বাইরে যে বসবাস করে, সে হয় পশু না হয় দেবতা।” এ ইউনিটে রাষ্ট্রের ধারণা, রাষ্ট্র ও সরকারের সম্পর্কের ধরণ, রাষ্ট্রের উৎপত্তি সম্পর্কে বিভিন্ন মতবাদ, আধুনিক রাষ্ট্রের কার্যাবলি, কল্যাণ রাষ্ট্রের ধারণা আলোচনা করা হয়েছে। 

 সমাজতন্ত্র: সমাজতন্ত্র বা সমাজবাদ (ইংরেজি: Socialism) হচ্ছে এমন একটি সামাজিক এবং অর্থনৈতিক ব্যবস্থা যার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে উৎপাদনের উপকরণের সামাজিক মালিকানা এবং অর্থনীতির একটি সমবায়ভিত্তিক ব্যবস্থাপনা, এছাড়াও একই সাথে এটি একটি রাজনৈতিক মতবাদ ও আন্দোলন যার লক্ষ্য হচ্ছে এই ধরনের ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা। অর্থাৎ এটি এমন একটি সামাজিক-অর্থনৈতিক ব্যবস্থা যেখানে সম্পদ ও অর্থের মালিকানা সামাজিক বা রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণাধীন অর্থাৎ কোনো ব্যক্তিমালিকানা থাকে না। সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থায় জনসাধারণের প্রয়োজন অনুসারে পণ্য উৎপাদন হয়। সমাজতান্ত্রিক অর্থনীতিতে একটি দেশের কলকারখানা, খনি, জমি ইত্যাদি সামাজিক বা রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি হিসেবে পরিগণিত হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]


সমাজতন্ত্র হল সাম্যবাদী সমাজের প্রথম পর্যায়। উৎপাদনের উপায়ে সমাজতান্ত্রিক মালিকানা হলো এর অর্থনৈতিক ভিত্তি। সমাজতন্ত্র ব্যক্তিগত মালিকানার উৎখাত ঘটায় এবং মানুষে মানুষে শোষণ, অর্থনৈতিক সঙ্কট ও বেকারত্বের বিলোপ ঘটায়, উন্মুক্ত করে উৎপাদনী শক্তির পরিকল্পিত বিকাশ ও উৎপাদন সম্পর্কের পূর্ণতর রূপদানের প্রান্তর। সমাজতন্ত্রের আমলে সামাজিক উৎপাদনের লক্ষ্য ছিল জনগণের স্বচ্ছলতা বৃদ্ধি ও সমাজের প্রতিটি লোকের সার্বিক বিকাশ সাধন। সমাজতন্ত্রের মুলনীতি হলো 'প্রত্যেকে কাজ করবে তার সামর্থ্য অনুযায়ী এবং প্রত্যেকে গ্রহণ করবে তার প্রয়োজন অনু্যায়ী।' সমাজতন্ত্র দুই ধরনেরঃ কল্পলৌকিক সমাজতন্ত্র ও বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র। সোভিয়েত ইউনিয়নে সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র কায়েম করা হয়েছিলো ১৯১৭ সালে। সমাজতন্ত্রে বৈরি শ্রেণি নাই, কেননা কলকারখানা, ভূমি, সবই সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সম্পত্তি। সমাজতন্ত্রে শ্রেণি শোষণ বিলুপ্ত হয়।শুরু হয় সমাজতান্ত্রিক অর্থনীতি।


উপসংহার: রাষ্ট্রের অন্যতম প্রধান উপাদান হচ্ছে সরকার। বস্তুত: সরকার ছাড়া কোন রাষ্ট্রই পরিচালিত হতে পারবে না। রাষ্ট্র বৈশিষ্ট্যগত দিক থেকে অনড় প্রকৃতির হলেও, সময় ও স্থানভেদে সরকার ব্যবস্থার রূপ পরিবর্তিত হতে পারে। সরকারের মাধ্যমেই রাষ্ট্র পরিচালিত হয়। অনেকে সেজন্য সরকারকে রাষ্ট্রের মস্তিষ্ক হিসেবে মনে করেন। 

Share This

0 Response to " সমাজতন্ত্র কী"

Post a Comment

Popular posts