করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই।। শিক্ষামন্ত্রী।
Welcome To TopSuggestion

নিয়ন্ত্রণ কি

নিয়ন্ত্রণ কি

উদ্দেশ্য অর্জনের জন্য পূর্ব নির্ধারিত পরিকল্পনা অনুযায়ী কার্যাদি যথাসময়ে ও যথার্থ মান অনুযায়ী সম্পাদিত হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ ও তুলনা করা, কোন বিচ্যুতি হলে তার কারণ অনুসন্ধান করে প্রয়োজনীয় সংশোধনমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করাই হলো নিয়ন্ত্রণ। নিয়ন্ত্রণ হলো সম্পাদিত কার্য পরিমাপ এবং সংশোধন- যাতে করে জানা যায় যে, প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্যাবলী এবং পরিকল্পনাসমূহ সুসম্পন্ন হয়েছে। পরিকল্পনা এবং নিয়ন্ত্রণ ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কযুক্ত। এরা একই কাঁচির দুটি ফলা এবং দুই ফলা একত্রিত না হলে কাঁচি কোন কাজ করে না। তেমনি পরিকল্পনা ছাড়া নিয়ন্ত্রণ অসম্ভব। কারণ, কার্যসম্পাদন সবসময়ই কিছু প্রতিষ্ঠিত মানদণ্ডের মাধ্যমে পরিমাপ করা হয়। ব্যবস্থাপনার উচ্চ, মধ্য ও নিম্ন অর্থাৎ সকল স্তরেই নিয়ন্ত্রণ আবশ্যক। সকল স্তরের সুষ্ঠু নিয়ন্ত্রণ ছাড়া কখনো কোন প্রতিষ্ঠানের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য অর্জন করা সম্ভব নয়। তবে পরিকল্পনা ভবিষ্যৎমুখী অর্থাৎ ভবিষ্যতে কখন কি করা হবে তা বিস্তারিত ভাবে পরিকল্পনায় বর্ণিত হয়। অপর দিকে নিয়ন্ত্রণ অতীতমুখী অর্থাৎ প্রণীত পরিকল্পনায় স্থির আদর্শ মানের আলোকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়।


নিয়ন্ত্রণ: নিয়ন্ত্রণের আভিধানিক অর্থ হলো কোন কিছু পরিচালনা, সংযতকরণ, দমন, বিরত রাখা বা আয়ত্তে রাখা। ব্যবস্থাপনা প্রক্রিয়া বা কার্যাবলির সর্বশেষ ধাপ হলো নিয়ন্ত্রণ। সহজ কথায় নিয়ন্ত্রণ বলতে পরিকল্পনার আলোকে প্রতিষ্ঠানের সকল কার্যক্রম সঠিকভাবে সম্পন্ন হচ্ছে কিনা তা যাচাই করা এবং কোন গরমিল থাকলে তার প্রতিকার করাকে বুঝায়। প্রতিষ্ঠানের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য অর্জনের জন্য সর্বপ্রথম পরিকল্পনা তৈরি করা হয়। অতঃপর প্রণীত পরিকল্পনার আলোকে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিশ্চিতের জন্য সংগঠন (প্রয়োজণীয় মানবীয় ও অমানবীয় উপকরণাদির), কর্মী নিয়োগ, নির্দেশ প্রদান, সমন¦য় সাধন, প্রেষণা প্রদান করেন। কিন্তু অধীনস্থরা সব সময়ই সকল কার্যাদি সুষ্ঠুরূপে সম্পাদন করতে পারে না। কখনো পরিবেশ পরিস্থিতিও পাল্টে যায়। তাই প্রয়োজন হয় নিয়ন্ত্রণের। নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে সকল ভুল-ত্রুটি খুঁজে বের করা হয় এবং সংশোধনের ব্যবস্থা নিয়ে উদ্দেশ্য অর্জন নিশ্চিত করা হয়। নিয়ন্ত্রণের ক'টি গুরুত্বপূর্ণ সংজ্ঞা নিুে প্রদত্ত হলো ঃ
Henry Fayol এর মতে,“নিয়ন্ত্রণ হলো প্রণীত পরিকল্পনা, প্রদত্ত নির্দেশাবলী এবং প্রতিষ্ঠিত নীতিমালার আলোকে
কার্যাবলি সম্পাদিত হচ্ছে কিনা তা পরীক্ষা করা।  ("In an undertaking control consists in verifying whether everything occurs in conformity with the plan adopted, the instructions issued and the principles established") 

 Weihrich and Koontzএর মতে, নিয়ন্ত্রণ হলো সম্পাদিত কার্য পরিমাপ এবং সংশোধন- যাতে করে নিশ্চিত যায়
প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্যাবলী এবং পরিকল্পনাসমূহ সুসম্পন্ন হয়েছে। | ("Controlling is the measurement and correction of performance in order to make sure that enterprise objectives and the plans desired to attain them are being accomplished.")

উপরে উল্লেখিত সংজ্ঞাগুলো পর্যালোচনার আলোকে আমরা বলতে পারি যে, উদ্দেশ্য অর্জনের জন্য পূর্ব নির্ধারিত পরিকল্পনা
অনুযায়ী কার্যাদি যথাসময়ে ও যথার্থ মান অনুযায়ী সম্পাদিত হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ ও তুলনা করা, কোন বিচ্যুতি হলে
তার কারণ অনুসন্ধান করে প্রয়োজনীয় সংশোধনমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করাই হলো নিয়ন্ত্রণ।
পরিকল্পনা এবং নিয়ন্ত্রণ ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কযুক্ত। এরা একই কাঁচির দুটি ফলা এবং দুই ফলা একত্রিত না হলে কাঁচি কোন
কাজ করে না। তেমনি উদ্দেশ্য এবং পরিকল্পনা ছাড়া নিয়ন্ত্রণ অসম্ভব। কারণ, কার্যসম্পাদন সবসময়ই কিছু প্রতিষ্ঠিত
মানদণ্ডের মাধ্যমে পরিমাপ করা হয়। ব্যবস্থাপনার উচ্চ, মধ্য ও নিু অর্থাৎ সকল স্তরেই নিয়ন্ত্রণ আবশ্যক। সকল স্তরের
সুষ্ঠু নিয়ন্ত্রণ ছাড়া কখনো কোন প্রতিষ্ঠানের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য অর্জন করা সম্ভব নয়। তবে পরিকল্পনা ভবিষ্যৎমুখী অর্থাৎ ভবিষ্যতে কখন কি করা হবে তা বিস্তারিত ভাবে পরিকল্পনায় বর্ণিত হয়। অপর দিকে নিয়ন্ত্রণ অতীতমুখী অর্থাৎ প্রণীত পরিকল্পনায় স্থির আদর্শ মানের আলোকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়।
 

সারসংক্ষেপ: নিয়ন্ত্রণের আভিধানিক অর্থ হলো কোন কিছু পরিচালনা সংযতকরণ, দমন, বিরত রাখা বা আয়ত্তে রাখা। ব্যবস্থাপনা
প্রক্রিয়া বা কার্যাবলির সর্বশেষ ধাপ হলো নিয়ন্ত্রণ। সহজ কথায় নিয়ন্ত্রণ বলতে পরিকল্পনার আলোকে / অনুযায়ী
প্রতিষ্ঠানের সকল কার্যক্রম সঠিকভাবে সম্পন্ন হচ্ছে কিনা তা যাচাই করা এবং কোন গরমিল থাকলে তার প্রতিকার
করাকে বুঝায়।প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য অর্জনে নিয়ন্ত্রনের গুরুত্ব অপরিসীম। পরিকল্পনা এবং অন্যান্য কার্যক্রম যতো
সুন্দরভাবেই সম্পাদন হউক না কেন সুষ্ঠু নিয়ন্ত্রণ না থাকলে সব কিছুই অর্থহীন হতে বাধ্য। তাই সকল স্তরের সকল
কার্য সুন্দরভাবে সম্পাদনের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য ও অর্জনের জন্য, প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকার জন্য
নিয়ন্ত্রণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

Share This

0 Response to "নিয়ন্ত্রণ কি"

Post a Comment

Popular posts