ডিগ্রী ২য় বর্ষ ২০২১ ইসলামিক স্টাডিজ ৪র্থ পত্র স্পেশাল শর্ট সাজেশন রেডি আছে নিতে চাইলে ম্যাসেজ করুন।
Welcome To TopSuggestion

সাধারণ বিজ্ঞান : নবম-দশম শ্রেণি তৃতীয় অধ্যায়

 


০১। রক্তে লোহিত কণিকা সঞ্চিত থাকে – প্লীহাতে।
০২। অনুচক্রিকার গড় আয়ু – ৫ থেকে ১০ দিন।
লোহিত রক্ত কণিকায় গড় আয়ু – ১২০ দিন।
শ্বেতকণিকার গড় আয়ু – ১-১৫ দিন।


০৩। লোহিত কণিকার আকৃতি – চ্যাপ্টা।
০৪। সর্বজন দাতা গ্রুপ – O+ গ্রুপ।
০৫। রক্তে অ্যান্টিজেন নেই – O+ গ্রুপে।
০৬। হৃৎপিন্ডের আকৃতি – ত্রিকোণাকার।
০৭। রক্তে কিসের পরিমান বেশি থাকা শরীরে জন্য উপকারি – HDL।
০৮। রক্তে কোলেস্টেরল স্বাভাবিক পরিমান – ১০০-২০০mg/dl।
০৯। মানুষের স্বাভাবিক রক্তচাপ -১২০/৮০ mmHg।
১০। মানুষের মোট ওজন শতকরা – ৮% রক্ত।
১১। ধমনির রক্তের pH – ৭.৪।
১২। পূর্ণবয়স্ক মানুষের রক্তের পরিমান – ৫-৬ লিটার।
১৩। রক্ত গঠিত – যোজক টিস্যু।
১৪। রক্তের প্রধান উপাদান – লৌহ।
১৫। রক্তের প্রধান উপাদান – ২টি।
১৬। রক্তে রেচন পদার্থ – ইউরিয়া।
১৭। রক্ত লাল দেখায় – হিমোগ্লোবিন থাকায়।
১৮। দেহের প্রহরী – শ্বেতকণা।
১৯। রক্তে লিম্ফোসাইটের পরিমান – ২০-৪৫%।
২০। হিমোগ্লোবিন থাকে না – শ্বেতকণিকায়।
২১। রক্তে অ্যান্টিজেন থাকে – ২টি।
২২। AB গ্রুপে রক্তের মানুষ – ৩%।
২৩। হৃৎপিন্ড বেষ্টনকারী পদার্থের নাম – পেরিকার্ডিয়াম (২ স্তর)।
২৪। নিলয়ের অপর নাম – ভেন্টিকল।
২৫। একটি হৃৎস্পন্দনের সময় লাগে ০.৮ সেকেন্ড।
২৬। হৃৎপিন্ড প্রসারণকে বলা হয় – ডায়াস্টোল।
২৭। প্রতিমিনিটে হার্টবিটকে বলে – ডাব।
২৮। কার্ডিয়াক চক্রের ধাপ – ৪টি।
২৯। LDL এর পূর্ণরুপ -Low Density Lipoprotein।
৩০। সমগ্র রক্তে -৫৫% রক্তরস, ৪৫% রক্তকণিকা।
৩১। রক্তের তরল অংশকে বলে – প্লাজমা।
৩২। রক্ত কণিকা – ৩ প্রকার।
https://www.facebook.com/groups/854597195086792/
৩৩। রক্ত রসের -১০% জৈব ও অজৈব।
৩৪। রক্তরস আলাদা করলে রক্তের রং হবে – হালকা হলুদ।
৩৫। প্লেটলেট অর্থ – অণুচক্রিকা।
৩৬। ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হলে কোন অবস্থার সৃষ্টি হয় – পারপুরা।
৩৭। মানুষের রক্তের A গ্রুপ শতকরা – ৪২%।
৩৮। মানুষের রক্তের B গ্রুপ শতকরা – ৯%।
৩৯। মানুষের রক্তের AB গ্রুপ শতকরা – ৩%।
৪০। মানুষের রক্তের O+ গ্রুপ শতকরা – ৪৬%।
৪১। RBC – Red Blood cell।
৪২। রেসাস ফ্যাক্টরের সংকেত – Rh।
৪৩। রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করে – ডা. কার্ল ল্যান্ডস্টেইনার (১৯০০ সালে)।
৪৪। Rh ফ্যাক্টরের নামকরন করা হয় – বানর দ্বারা।
৪৫। হৃৎপিন্ডের অবস্থান – দুই ফুসফুসের মাঝে।
৪৬। হৃৎপিন্ডের ওজন – ৩০০ গ্রাম।
৪৭। হৃৎপিন্ডের সংকোচনকে বলা হয় – সিস্টোল।
৪৮। মানুষের হৃৎপিন্ড প্রকোষ্ঠ – ৪ ভাগে।
৪৯। রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা – ৮০ থেকে ১২০ গ্রাম/ডেসি.লিটার।
৫০। HDL এর পূর্ণরুপ -High Density লিপপ্রতেইন

Share This

0 Response to "সাধারণ বিজ্ঞান : নবম-দশম শ্রেণি তৃতীয় অধ্যায়"

Post a Comment

Popular posts