ডিগ্রী ২য় বর্ষ ২০২১ রাষ্ট্রবিজ্ঞান ৪র্থ পত্র স্পেশাল শর্ট সাজেশন রেডি আছে নিতে চাইলে ম্যাসেজ করুন।
Welcome To TopSuggestion

থানকুনির গুণাবলী উপকারিতা

১। জ্বর হলে থানকুনির পাতার রস ও ১ চা-চামচ ও শিউলি পাতার মিশিয়ে খেলে জ্বর ভালো হয়।  

২। অল্প পরিমান আম গাছের ছাল, ১টা /২টা আনারসের কচি পাতা , র্কাঁচা হলুদের রস ৪ / ৫টি থানকুনি গাছের শিকড় ভালো ভাবে ধুয়ে বেটে রস করে খালি পেটে খেলে পেটের পীড়া সেরে যায় । ছোট বাচ্চাদের ক্ষেত্রে এটা আরো বেশী উপকারি।


৩। আধা কেজি দুধে ১ পোয়া মিশ্রি অথবা  আধা পোয়া থানকুনির পাতার রস এক সংঙ্গে মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে ১ সপ্তাহ খেলে গ্যাস্ট্রিক / বদহজম ভালো হয়।


৪। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ৪  চামচ থানকুনি পাতার রস এবং ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে ৭ দিন খেলে রক্ত দূষণ সেরে যায়।


৫। পুষ্টির অভাব ও ভিটামিনের অভাবে চুল পড়লে  পাশাপাশি ৫ থেকে ৬ চা চামচ থানকুনি পাতার রস দুধের সাথে মিশিয়ে খেলে চুল পড়া রোধ হয়।


৬। ঠান্ডায় নাক বন্ধ অথবা সর্দি কাশি হলে থানকুনির শিকড় ও ডাঁটার মিহি গুড়ার নস্যি নিলে আরাম পাওয়া যায়।


৭। থানকুনি গাছ মাথা ব্যথা, হজমের রোগ, বহুমূত্র, আলসার, কাশ-কফ এবং স্থায়ী আমাশয় দূর করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। 

Share This

0 Response to "থানকুনির গুণাবলী উপকারিতা"

Post a Comment

Popular posts