করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই।। শিক্ষামন্ত্রী।
Welcome To TopSuggestion

পরিসর কি ?

 

ভূমিকা: তথ্যমানসমূহে অথবা কোন গণসংখ্যা নিবেশনের ক্ষেত্রে তথ্যমানগুলোর কেন্দ্রের দিকে কেন্দ্রীভূত হওয়ার প্রবণতা যেমন থাকে তেমনি মানগুলোর বিভিন্ন দিকে প্রসারিত হওয়ার প্রবণতাও থাকে। অর্থাৎ কোন চলকের মানের কেন্দ্রীয় প্রবণতাই একমাত্র বৈশিষ্ট্য নয় চলকটির মানের বিস্তারও অন্য একটা বৈশিষ্ট্য।

বিস্তার হল কেন্দ্রীয় প্রবণতার বিপরীত ধরনের বৈশিষ্ট্য। চলকের মানগুলোর বিভিন্ন দিকে প্রসারিত হবার প্রবণতাকে বিস্তার বলে। বিস্তারের পরিমাপ যার দ্বারা করা হয় তাকে বিস্তার পরিমাপক বলা হয়। এ অধ্যায়ে বিভিন্ন পাঠে বিস্তারের পরিমাপ, প্রয়োজনীয়তা, বিস্তার পরিমাপের সুবিধা অসুবিধা ইত্যাদি সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।


পরিসর: পরিসর হল বিস্তার পরিমাপের সবচেয়ে সহজবোধ্য ও সহজভাবে নির্ণয়ের পরিমাপ। চলকের মানসমূহের বৃহত্তম ও ক্ষুদ্রতম মানের বা সংখ্যার পার্থক্য বা ব্যবধানকে পরিসর বলে। অর্থাৎ পরিসর = বৃহত্তম সংখ্যা  ক্ষুদ্রতম সংখ্যা। গণসংখ্যা নিবেশনের ক্ষেত্রে উচ্চতর শ্রেণীর উচ্চসীমা এবং নিম্নতর শ্রেণীর নিম্নসীমার ব্যবধানকে পরিসরের পরিমাণ বলে।

অর্থাৎ পরিসর = উচ্চশ্রেণীর উচ্চসীমা Ñ নিম্নশ্রেণীর নিম্নসীমা।

পরিসরের আপেক্ষিক পরিমাপ হলো পরিসরাংক। চলকের তথ্যমান সমূহের পরিসরকে বৃহত্তম ও ক্ষুদ্রতম মানের যোগফল দ্বারা ভাগ করলে পরিসরাংক পাওয়া যায়।


উদাহরণ: ১২ জন ব্যক্তির উচ্চতা হল যথাক্রমে ৬২, ৬৫, ৬৮, ৬৯, ৭১, ৬৯, ৬৭, ৭১, ৬৬, ৭৩, ৭২, ৬১ ইঞ্চি। 

পরিসর এবং পরিসরাংক নির্ণয় করুন।

সমাধান: এখানে বৃহত্তম সংখ্যা= ৭৩

ক্ষুদ্রতম সংখ্যা = ৬১

 পরিসর = ৭৩Ñ৬১

= ১২ ইঞ্চি।

সারসংক্ষেপ: তথ্যমান সমূহের অথবা গণসংখ্যা নিবেশনের ক্ষেত্রে তথ্যমানগুলোর কেন্দ্রের দিকে কেন্দ্রিভূত হওয়ার প্রবনতা যেমন থাকে তেমনি মানগুলোর প্রসারিত হওয়ার প্রবনতাও থাকে। বিস্তার হল কেন্দ্রীয় প্রবনতার বিপরীত ধরনের বৈশিষ্ট্য।


Share This

0 Response to "পরিসর কি ?"

Post a Comment

Popular posts