করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই।। শিক্ষামন্ত্রী।
Welcome To TopSuggestion

পরিবর্তন হচ্ছে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা পদ্ধতি


পরিবর্তন হচ্ছে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা পদ্ধতি। ২০১২ সালের পর আবার শিক্ষা ব্যবস্থায় সংস্কার আসছে। দশম শ্রেণিতে থাকবে আলাদা বই, এর ওপরেই হবে এসএসসি পরীক্ষা। আর হবে দুই ধাপে দুই বছরে এইচএসসি পরীক্ষা । এ ধরনের প্রস্তাবনার আলোকে নতুন শিক্ষাক্রমে সামনে বছর শুধু প্রথম ও দ্বিতীয় এবং ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের হাতে পাঠ্যবই দেবে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)।


জানা গেছে, প্রাক-প্রাথমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত শিক্ষাক্রমে সামঞ্জস্য রেখে পাঠ্যবই বদলে যাবে। পাল্টে যাবে শিক্ষার্থী মূল্যায়ন ব্যবস্থাও। নতুন করে প্রাক-প্রাথমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত শিক্ষাক্রমে পরিবর্তন আনার কাজ শুরু করা হয়েছে। সামঞ্জস্য রেখে পাঠ্যবই এবং শিক্ষার্থী মূল্যায়ন ব্যবস্থা পাল্টে যাবে।


প্রস্তাবিত শিক্ষাক্রম অনুযায়ী তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা নেই। চতুর্থ থেকে সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত ৭০ শতাংশ নম্বর থাকবে ধারাবাহিক মূল্যায়নে। এছাড়া অষ্টম-নবমে ৬০, দশমে ৫০ শতাংশ এবং এইচএসসিতে ৩০ শতাংশ নম্বর ধারাবাহিক মূল্যায়নের আওতায় আসবে। প্রস্তাবিত শিক্ষাক্রমের আলোকে এখন সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষাক্রম তৈরি হচ্ছে। নতুন শিক্ষাক্রমে আগামী বছর শুধু চারটি শ্রেণিতে শিক্ষার্থীদের হাতে পাঠ্যবই তুলে দেয়া হবে। শ্রেণি চারটি হচ্ছে, প্রথম ও দ্বিতীয় এবং ষষ্ঠ ও সপ্তম।


বিকাশ এপ ডাউনলোড করে লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস, সাথে ৫০ টাকা বোনাস একদম ফ্রী - Bkash App Download Link শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে EducationsinBD এর চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel

এসব শ্রেণির শিক্ষাক্রম লেখার কাজ ১৫ এপ্রিলের মধ্যে শেষ হবে। এরপরে পাঠ্যবই লেখা শুরু হবে। ২০২৪ সালের মধ্যে দশম শ্রেণি এবং ২০২৬ সালের মধ্যে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত নতুন শিক্ষাক্রমে বই প্রবর্তন শেষ হবে। এর আগে ২০২৩ সালে তৃতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম এবং অষ্টম ও নবম শ্রেণিতে নতুন পাঠ্যবই যাবে। আগামী বছর থেকে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা দুই বছর মেয়াদি হবে।


বর্তমানে নবম শ্রেণিতে শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ভাগ হয়ে যায়। কিন্তু পরিকল্পনা অনুযায়ী, দশম শ্রেণি পর্যন্ত সব শিক্ষার্থীই একই পাঠ্যবই পড়বে। এমনকি এ দুই শ্রেণিতে তারা প্রাক-বৃত্তিমূলক শিক্ষা নেবে। এর অংশ হিসাবে অন্তত একটি ট্রেড নিতে হবে সবাইকে। এর পাঠের ওপর তারা নেবে হাতে-কলমে শিক্ষা। 

বিভাগভিত্তিক ভাগ হয়ে যাবে উচ্চ মাধ্যমিক। তবে অন্তত তিনটি অভিন্ন বিষয় পড়তে হবে  ওই স্তরে সব শিক্ষার্থীকে। 


আর অন্তত তিনটি বিষয় থাকবে বিভাগভিত্তিক । তিনটি করে পত্র থাকবে প্রতিটি বিষয়ে । মূলত  নবম-দশম শ্রেণিতে বিভাগভিত্তিক শিক্ষায় বর্তমানে বিভিন্ন বিষয়ে যে জ্ঞান পেত, একটি পত্র বাড়িয়ে সেটির প্রয়োজনীয় জ্ঞান দেয়া হবে, যাতে উচ্চশিক্ষায় বিশেষায়িত লেখাপড়ায় সংকট তৈরি না হয়।


নতুন শিক্ষাক্রমে বা পাঠ্যপুস্তকের আলোকে এসএসসি প্রথম পরীক্ষা হবে ২০২৫ সালে উল্লিখিত পরিকল্পনা অনুযায়ী, । আর দ্বিতীয় পর্বের (দ্বাদশ শ্রেণিতে) এইচএসসি ২০২৭ সালে প্রথম পর্বের এবং এইচএসসি (একাদশ শ্রেণিতে) হবে ২০২৬ ।


জানা  দেশের বিভিন্ন স্কুলে এর পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলছে গেছে চলতি বছর। নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়িত হলে সাপ্তাহিক ছুটি দুইদিন করে দেয়া হবে। বর্তমানে কিছু বলা নেই  শিক্ষাক্রমে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষার বিষয়ে। সরকারের নির্বাহী আদেশে পরীক্ষা দুটি হচ্ছে। প্রস্তাবিত শিক্ষাক্রমেও এ বিষয়ে কোনো দিকনির্দেশনা নেই বলে জানা গেছে।


জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র সাহা বলেন, বর্তমানে ২০১২ সালে প্রবর্তিত শিক্ষাক্রম অনুযায়ী ছাত্রছাত্রীদের লেখাপড়া চলছে। বিশ্বব্যাপী পাঁচ বছর পরপর শিক্ষাক্রম পরিমার্জন করা হয়ে থাকে। যুগের চাহিদা ও বাস্তবতা বিবেচনায় এটা স্বাভাবিক কার্যক্রমেরই অংশ। সেই হিসেবে আরও আগে এ পরিমার্জন আসা প্রয়োজন ছিল।


তিনি বলেন, বর্তমানে নবম শ্রেণিতে শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ভাগ হয়ে যায়। কিন্তু পরিকল্পনা অনুযায়ী, দশম শ্রেণি পর্যন্ত সব শিক্ষার্থীই একই পাঠ্যবই পড়বে। এমনকি এ দুই শ্রেণিতে তারা প্রাক-বৃত্তিমূলক শিক্ষার সুযোগ পাবে।


এ প্রসঙ্গে এনসিটিবির সদস্য  অধ্যাপক মশিউজ্জামান গণমাধ্যমকে বলেন, ভিশন ২০৪১ রূপকল্প, আওয়ামী লীগের ইশতেহার, জাতীয় শিক্ষানীতি ও জাতিসংঘ ঘোষিত এসডিজি বিবেচনায় নতুন শিক্ষাক্রম করা হচ্ছে। এর রূপরেখা প্রথমে তৈরি করা হয়। সেটি অনুমোদন পেলে শিক্ষাক্রম লেখার কাজ শুরু হয়েছে। প্রথমে সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত লেখা হবে। নতুন শিক্ষাক্রমের আলোকে আগামী বছর চারটি শ্রেণিতে পাঠ্যবই যাবে। এগুলো তৈরির কাজ শেষ হবে ১৫ এপ্রিলের মধ্যে বলে জানান তিনি।

Share This

0 Response to "পরিবর্তন হচ্ছে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা পদ্ধতি"

Post a Comment

Popular posts