করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই।। শিক্ষামন্ত্রী।
Welcome To TopSuggestion

প্রশ্ন: ব্যষ্টিক এবং সামষ্টিক অর্থনীতির মধ্যে পার্থক্য লিখ। উত্তর:




ভূমিকা: আধুনিক কালে অর্থনীতিকে পদ্ধতিগত দিক হতে দুই ভাগে ভাগ করা হয়। যথা: (ক) ব্যষ্টিক অর্থনীতি ও (খ) সামষ্টিক অর্থনীতি। ১৯৩৩ সালে অসলো বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রগনার ফ্রিশ কতৃক এ শব্দটি সর্বপ্রথম ব্যবহৃত হয়।

ব্যষ্টিক অর্থনীতি ও সামষ্টিক অর্থনীতির মধ্যে নিম্নলিখিত পার্থক্যগুলো বিদ্যমান:
শব্দগত পার্থক্য: ব্যষ্টিক বা Micro শব্দের অর্থ হলো ক্ষুদ্র বা ছোট। অপরদিকে সামষ্টিক বা Macro শব্দের অর্থ হলো‌ বৃহৎ বা বিশাল।

সংঙ্গা: অর্থনীতি যে শাখায় বিভিন্ন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান বা সংস্থা সম্পর্কের পৃথক পৃথকভাবে আলোচনা করা হয় তাকে ব্যষ্টিক অর্থনীতি বলে। অপরদিকে অর্থনীতির যে শাখায় অর্থনৈতিক সমস্যা ও অর্থনৈতিক কার্যাবলিকে ব্যক্তিগত বা খন্ডিত দৃষ্টিকোণ থেকে বিবেচনা করে সামগ্রিক দৃষ্টিকোণ থেকে আলোচনা করে তাকে বলা হয় সামষ্টিক অর্থনীতি।

ভরসাম প্রক্রিয়া : ব্যষ্টিক অর্থনীতি আংশিক ভারসাম্য পদ্ধতি অনুসরণ করে । পক্ষান্তরে সামষ্টিক অর্থনীতি সামগ্রিক ভারসাম্য পদ্ধতি অনুসরণ করে ।
ব্যক্তিগত ও সামাজিক বিষয় : ব্যষ্টিক অর্থনীতির আলােচ্য বিষয় একজন ব্যক্তি , ভোক্তা , উৎপাদক , বিনিয়োগকারী ইত্যাদি । অন্যদিকে সামষ্টিক অর্থনীতির আলোচ্য বিষয় সমাজ বা সমাজবদ্ধ মানুষের সামগ্রিক অর্থনৈতিক কার্যক্রম । যেমন: জাতীয় আয়, মূল্যস্তর ইত্যাদি।

চলকের পার্থক্য : ব্যষ্টিক অর্গানীতির মূল চলক হলো ফার্মের উপাদান নিয়োগ , বিশেষ দ্রব্যের দাম , উৎপাদন , বিশেষ ভোক্তার আয়, ভোগ, সঞ্চয় ইত্যাদি। অপরদিকে সামষ্টিক অর্থনীতির চলকগুলো হলো জাতীয় আয়, সামগ্রিক ভোগ স্তর, নিয়োগ স্তর, বিনিয়োগ স্তর ইত্যাদি।

মডেলের পার্থক্য : ব্যষ্টিক অর্থনীতির মডেল হলাে ব্যক্তি বা সমাজের একাংশের । অপরদিকে সামষ্টিক অর্থনৈতিক মডেল হলাে সমাজবদ্ধ মানুষের অর্থনৈতিক আচরণের মডেল ।
পরিধি: ব্যষ্টিক অর্থনীতি অর্থ ব্যবস্থার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অংশ নিয়ে পর্যালােচনা করে । তাই ব্যষ্টিক অর্থনীতির পরিধি ক্ষুদ্র ও আংশিক । অপরদিকে সামষ্টিক অর্থনীতি অর্থ ব্যবস্থার সামগ্রিক দিক নিয়ে আলােচনা করে । এ কারণে সামষ্টিক অর্থনাতির পরিধি অপেক্ষাকৃত ব্যাপক ও বিস্তৃত ।

অর্থনীতির চিত্র : ব্যষ্টিক অর্থনীতি পর্যালােচনার মাধ্যমে কোনাে দেশের অর্থনীতির আংশিক বা খন্ড চিত্র পাওয়া যায় । অপরদিকে সামষ্টিক অর্থনীতি পর্যালােচনার মাধ্যমে কোনাে দেশের অর্থনীতির পূর্ণাঙ্গ বা সার্বিক চিত্র পাওয়া যায় ।

অনুমিত শর্ত : ব্যষ্টিক অর্থনীতিতে যে কোনাে তত্ত্ব ব্যাখ্যার ক্ষেত্রে অনুমিত শর্ত হিসেবে " অন্যান্য অবস্থা অপরিবর্তিত বা স্থির " ধরা হয় । কিন্তু সামষ্টিক অর্থনীতিতে এরূপ অনুমিত শর্ত বিবেচনা করার প্রয়ােজন নেই ।

বিশ্লেষণের সূক্ষ্মতা : ব্যষ্টিক অর্থনীতিতে অর্থনীতির বিষয়বস্তু অতি ক্ষুদ্র তথা সূক্ষ্মভাবে বিশ্লেষণ করা হয় । ফলে এক্ষেত্রে বিভিন্ন বিষয়ের পর্যালােচনা অধিকতর বিশ্লেষণ ধৰ্মী ও স্পষ্ট হয় । কিন্তু সামষ্টিক অর্থনীতির ক্ষেত্রে বিষয়বস্তু সার্বিকভাবে পর্যালােচনা করা হয় বিধায় এক্ষেত্রে সূক্ষ্ম বিশ্লেষণ করা সম্ভব হয় না ।

গুরুত্ব : অর্থনীতির যেকোন একক খাত বা বিষয়কে উত্তমরুপে বিশ্লেষণের জন্য ব্যষ্টিক অর্থনীতির গুরুত্ব রয়েছে । অপর দিকে কোনাে দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক পরিস্থির মূল্যায়নের জন্য সামষ্টিক অর্থনীতির গুরুত্ব রয়েছে ।

পারস্পরিক সম্পর্ক : ব্যষ্টিক অর্থনীতিতে বিভিন্ন বিষয় সূক্ষ্ম ও পৃথক - পৃথকভাবে আলােচিত হয় ফলে তাদের মধ্যে তেমন ঘনিষ্ট সম্পর্ক থাকে না । অপরদিকে সামষ্টিক অর্থনীতির বিভিন্ন বিষয়বস্তু বিশ্লেষণ পারস্পরিকভাবে নিবিড় সম্পর্ক যুক্ত ।

উপসংহার : উপরােক্ত ক্ষেত্রগুলােতে ব্যষ্টিক এবং সামষ্টিক অর্থনীতির মধ্যে পার্থক্য পরিলক্ষিত হলেও এরা একে অপরের পরিপূরক । অর্থনৈতিক ব্যবস্থা বিশ্লেষণে একটি অপরটি ব্যতিরেকে অসম্পূর্ণ । সুতরাং অর্থনীতির ব্যষ্টিক ও সামষ্টিক কোনাে অংশকেই অস্বীকার করার উপায় নেই ।
Share This

0 Response to "প্রশ্ন: ব্যষ্টিক এবং সামষ্টিক অর্থনীতির মধ্যে পার্থক্য লিখ। উত্তর:"

Post a Comment

Popular posts