করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই।। শিক্ষামন্ত্রী।
Welcome To TopSuggestion

প্রশ্ন লিখিত সংবিধানের দোষাবলি আলােচনা কর উত্তর

অথবা , লিখিত সংবিধানের নেতিবাচক দিক আলােচনা কর । 

অথবা , লিখিত সংবিধানের ত্রুটিসমূহ উল্লেখ কর । 

উত্তর: ভূমিকা : রাষ্ট্রপরিচালনার ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের সংবিধান বিদ্যমান । এক্ষেত্রে লিখিত সংবিধান অন্যতম । লিখিত সংবিধানের বিভিন্ন গুণাবলি থাকলেও তা দোষত্রুটির উর্ধ্বে নয় । লিখিত সংবিধানের দোষাবলি : লিখিত সংবিধানের যে সমস্ত দোষাবলি আছে তা নিম্নে আলােচনা করা হলাে : 

১. রক্ষণশীল : লিখিত সংবিধানের প্রধান দোষ হলাে রক্ষণশীল চরিত্র । ফলে এরূপ সংবিধান গতিহীনতা দোষে দুষ্ট । 

২. জটিলতা : সংবিধান লিখিত হলেও সব কিন্তু লিপিবদ্ধ করা সম্ভব নয় । কিছু কিছু অলিখিত বিধান থেকে যায় । তাই বিশ্লেষণে সময়ে সময়ে বিভ্রান্তি ও জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে । 

৩. সংকীর্ণ : লিখিত সংবিধানের বিধিবদ্ধ বিধানগুলােকেই গুরুত্ব দেওয়া হয় । প্রচলিত প্রথা , রীতিনীতি প্রভৃতিকে এ সংবিধানে উপেক্ষা করা হয় । অথচ যে কোনাে দেশের শাসনব্যবস্থায় এগুলাের রাজনৈতিক বা সাংবিধানিক গুরুত্বকে অস্বীকার করা যায় না । তাই লিখিত সংবিধানের ধারাকে সংকীর্ণ বলা হয় । 

৪. অগ্রগতির অন্তরায় : লিখিত সংবিধানের দুষ্পরিবর্তনীয় চরিত্রের কারণে পরিবর্তিত পরিস্থিতির সাথে সংগতি রক্ষা করে চলা এর পক্ষে তাৎক্ষণিকভাবে সম্ভব হয় না । ফলে জাতীয় অগ্রগতি ব্যাহত হয় । 

৫. ভারসাম্যহীনতা সৃষ্টি : লিখিত সংবিধান সরকার পরিচালনায় ভারসাম্যহীনতা এবং জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে । যেমন মৌলিক অধিকার সংশােধন ক্ষেত্রে পার্লামেন্টের ক্ষমতা নিয়ে ষাট এবং সত্তরের দশকে ভারতে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল । 

৬. বিপ্লবের সম্ভাবনা : যুগের পরিবর্তনের সাথে সামঞ্জস্য বিধান করে লিখিত সংবিধান সহজে পরিবর্তন করা যায় না । ফলে জনগণ বিপ্লবের মাধ্যমে এ সংবিধান পরিবর্তন করে । এ ধরনের সংবিধান অনমনীয় বলে পরিবর্তিত অবস্থার সাথে খাপ খাওয়ানাে সম্ভব হয় না । ফলে বিপ্লব অনিবার্য হয়ে ওঠে । 

উপসংহার : উপযুক্ত আলােচনা থেকে লিখিত সংবিধানের দোষগুণ বর্তমান রয়েছে । তাই তুলনামূলক বিশ্লেষণে একটি দেশের সংবিধান লিখিত হওয়ায় বাঞ্ছনীয় ।

Share This

0 Response to "প্রশ্ন লিখিত সংবিধানের দোষাবলি আলােচনা কর উত্তর"

Post a Comment

Popular posts