করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই।। শিক্ষামন্ত্রী।
Welcome To TopSuggestion

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্নাস ভর্তির নিয়ম A To Z প্রশ্নের উত্তর।

 

প্রশ্নঃ২০-২১ এর ভর্তি আবেদন কবে শুরু ?

উঃ ৮ জুন বিকাল ৪টা থেকে শুর এবং ২২ জুন রাত ১১.৫৯ মিনিটে শেষ।

প্রশ্নঃ আবেদন কোথায় গিয়ে করতে হবে ?

উঃ যে সকল দোকানে অনলাইনের কাজ করা হয় ঐখান।

প্রশ্নঃ আবেদনের সময় কী কী লাগবে ?

উঃ SSC ও HSC এর রোল ও পাশের সন এবং ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ রঙ্গিন ছবি এবং ১টি সচল ফোন নাম্বার।

প্রশ্নঃ পাশের সালের কী কোনো সীমাবদ্ধতা আছে?

উঃ জ্বী আছে। আপনার SSC ১৭,১৮এবং HSC ১৯-২০ সালে পাশ থাকতে হবে।এর ১টি কম /বেশি হলে পারিবেন না।

প্রশ্নঃ কতটি কলেজ চয়েজ দিতে হয় ?

উঃ ১টি।

?প্রশ্নঃ কতটি বিষয় চয়েজ দেয়া যায়

উঃ যে কয়টি আপনার সামনে প্রদর্শিত হবে সব দিতে পারেন। আপনার ইচ্ছা। চাইলে ১টা ও দিতে পারেন।

প্রশ্নঃআবেদন অন্য কেউ করে দিলে হবে না ?

উঃ নিজ কাজ নিজে করা শ্রেয়।

প্রশ্নঃ আবেদনের সময় কত টাকা লাগে ? উঃ ৫০ বা ১শ টাকা।

প্রশ্নঃআবেদনে যদি কোনো প্রকার ভুল হয় অথবা আমি আমার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করি তবে কি নতুন ভাবে আবেদন করা যাব?

উঃ হ্যা যাবে।তবে ১বার।কিন্তু ফর্মটি কলেজে জমা দিয়ে দিলে আর যাবে না।

প্রশ্নঃ আবেদনের সাথে সাথে অথবা কতদিন পরে কলেজে জমা দিতে হবে ?

উঃ আপনার ইচ্ছা তবে সময় শেষ এর মধ্যে।

প্রশ্নঃআবেদন ফর্মটি জমা দিতে নিজেকে যাইতে হবে ?

উঃহ্যা

প্রশ্নঃ ফর্মটি কোথায় জমা দিবো ?

উঃ যে কলেজটা চয়েজ দিছেন ঐটাতে।

প্রশ্নঃজমা দেয়ার সময় কি কি কাগজ নিয়ে যাবো ?

উঃ ssc ও hsc এর রেজিঃ কার্ড ও নম্বরপত্র (মার্কশীট) এর ফটো কপি।

প্রশ্নঃ কলেজেতো এখন মার্কশীট আসে নাই অথবা তুলি নাই অথবা ssc এর ফটোকপিটাও নাই। তাহলে কি করবো ?

উঃ অনলাইন থেকে মার্কশীট ডাউনলোড করে ঐটা জমা দিলেও হবে।

প্রশ্নঃ কাগজগুলোর কত কপি করে জমা দিতে হবে ?

উঃ ২ বা ৪ কপি করে।

প্রশ্নঃ কাগজ গুলা জমা দেয়ার সময় কি কিছু করতে হবে ?

উঃ হ্যা...আবেদন পত্র দুটি অংশ থাকবে ।১টি কলেজের অপরটি স্টুডেন্টদের।দুটি অংশ আপনার ছবি নিছে স্বাক্ষর ও তারিখ দিতে হবে।যেদিন জমা দিবেন সেদিনের তারিখ দিবেন।কলেজ আলাদা ভাবে ফোন নাম্বার চাইলে উপরে লিখতে হবে।

প্রশ্নঃ জমা দেয়ার পর কি কোনো মেসেজ আসবে ?

উঃ হ্যা ১টি মেসেজ আসবে। প্রশ্নঃ কত সময় বা দিনের মধ্যে মেসেজ টা আসবে ?

উঃ ১ থেকে ৫ দিনের মধ্যে।

প্রশ্নঃ যদি মেসেজ না আসে ?

উঃ মেসেজ না আসলে দ্রুত স্বশরীরে কলেজে উপস্থিত হয়ে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্নঃ আবেদন গ্রহন হয়েছে তা সিওর হওয়ার কোনো কি অন্য পথ আছে ? মেসেজ গুলা ডিলিট হয়ে গেছে তাই টেনশনে আছি।

উঃ হ্যা আছে।আপনার কাছে যে আবেদন ফর্ম (কলেজে কাগজ জমা দিলে কলেজ আপনাকে স্টুডেন্ট কপিটা ফেরত দিবে এবং ঐটা আপনারে স্বযত্নে রাখতে হবে) সময় টি আছে ওটাতে ১টি পিন ও পাসোয়ার্ড আছে।ওটা দিয়ে জাবির ওয়েব সাইটে লগ ইন করলে Status - লাল রঙে Submit লেখা থাকবে। আর কলেজ আবেদন গ্রহন কররলে তা সবুজ রঙে Receive লেখা হয়ে যাবে।

প্রশ্নঃ আবেদন কলেজে জমা দিতে কতটাকা লাগবে?

উঃ ২৫০ টাকা।

প্রশ্নঃ ফর্মটা কলেজে জমা দিয়েছি মেসেজ আসছে বা আসেনি এখন কি ওটা বাতিল করা যাবে ?

উঃ না।

প্রশ্নঃ১ম মেরিটের রেজাল্ট কবে দিবে ?

উঃনোটিশ দিলে জানতে পারবেন।

প্রশ্নঃ রেজাল্ট দেখবো কিভাবে ?

উঃ রেজাল্ট মেসেজের মাধ্যমে জানতে মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন NU ATDG Roll পাঠিয়ে দিন 16222নম্বরে। এখনে আবেদন ফর্মের রোল নম্বর দিতে হবে।এবং এই একই পদ্ধতিতে মেধা ও রিলিজের আবেদনের ফলাফল দেখা যাবে।

প্রশ্নঃ আমার ১ম মেরিটে যদি চান্স না হয় ?

উঃ আবার ২য় মেরিট দিবে।কবে দিবে তাও সময় মত যানতে পারবেন।ক্লাশ শুরু হয়েছে তাতে টেনশনের কিছু নাই।

প্রশ্নঃ১ম মেরিটে চান্স পেয়েছি বাট ঐ সাবজেক্ট পছন্দ না । এখন কি হপে ?

উঃ১ম মেরিটে সুযোগ পেয়ে আপনি যদি ভর্তি না হন তবে আর আপনার রেজাল্ট ২য় মেরিটে দিবে না। আপনাকে রিলিজে আবেদন করা লাগবে।

প্রশ্নঃ আর যদি ২য় মেরিটেও সুযোগ পেয়ে ভর্তি না হই তবে কি আমার সিটটা থাকবে ?

উঃতখন আপনাকে রিলিজ স্লিপ তুলতে হবে।আর আপনার সিট থাকবে না।

প্রশ্নঃসুযোগ পাওয়ার পর কি করবো ?

উঃ সুযোগ পাওয়ার পর আপনাকে ১টি ফর্ম অনলাইন থেকে ডাউনলোড করত হবে। এই ফর্মটিতে আপনার থানা,বাবার নাম,মায়ের নাম,মোবাইল নাম্বর ইত্যাদি কিছু তথ্য দিতে হবে। এবং এটির ৩টি কপি নামাতে হবে।১টি বা দুটি হবে কলেজ কপি এবং আর ১টি হবে স্টুডেন্ট কপি। প্রশ্নঃমেরিট লিস্টে/১ম রিলিজে চান্স পেয়েছি। চূড়ান্ত ফর্ম ডাউনলোড করেছি তবে ভর্তি হতে চাইনা আমি কি ১ম রিলিজে/২য় রিলেজে আবেদন করতে পারবো '?

উঃ হ্যা।

প্রশ্নঃ মাইগ্রেশন কি ভাবে করবো ?

উঃ মাইগ্রেশন শুধু মাত্র ১ম ও ২য় মেরিটে সুযোগ প্রাপ্তরাই করতে পারবে।সুযোগ পাওয়ার পর যে ফর্মটি ডাউনলোড করতে যাবেন তখন দোকানদারকে বলবেন যে মাইগ্রেশন অপশনটা চালু রাখতে।

প্রশ্নঃ ' মাইগ্রেশন করলে কোন সাবজেক্ট পাবো বা কি নিয়ম এটার ?

উঃ ধরুন আপনি ৩টা কোর্সচ য়েজ করেছেন।এখন ৩ বা চার নাম্বারটা পেয়েছেন।মাইগ্রেশ করলে আপনি ২ বা ১ নম্বরটা পাবেন।আর ১নংটাই যদি আসে তবে আর মাইগ্রেশন হবে না।নিচ থেকে উপরে যায়।উপর থেকে নিচে আসে না। আর মাইগ্রেশন করলেই যে পাবেন এমনটা আমি বলতে পারবো না।এটা ভাগ্যের ব্যাপার।

প্রশ্নঃ ভর্তির সময় কি কি জমা দিতে হবে ?

উঃ ssc ও hsc এর মূল মার্কশীট, মূল রেজিঃ কার্ড,মূল প্রশংসা পত্র,২বা ৪বা ৬ কপি পাসর্পোট সাইজের ছবি,আবেদন ফর্ম,ডাউনলোড ফর্ম।এগুলোর আবার প্রত্যেকে ফটো কপি ২ বা ৪টি সেট। (কলেজ ভেদে)

প্রশ্নঃ ছবি যদি ভিন্ন ভিন্ন অর্থ আবেদনের সময় ১টা আর ভর্তির সময় অন্যটা দিলে সমস্যা আছে ? উঃ না।

প্রশ্নঃ ১ম ও ২য় মেরিটে চান্স পাইনি এখন কি করবো ? উঃ রিলিজ স্লিপ তুলবেন।

প্রশ্নঃ রিলিজ স্লিপ কি ? খায় নাকি মাথায় দেয় ?

উঃযারা ১ম ও ২য় মেরেটি চান্স পায় না বা পেয়েও ভর্তি হয়না তারা আবার রিলিজ স্লিপে আবেদন করবে।

[ বিঃদ্রঃ যারা প্রাথমিক আবেদন করে নাই আবার আবেদন করছে ব্যাংকে টাকা জমা দিছে তবে ফর্ম কলেজে জমা দেয় নি তার রিলিজে আবেদন করতে পারবে না, আর সেই বছর লস্ যাবে ।]

প্রশ্নঃ রিলিজে কয়টা কলেজ আবেদন করা যাবে ?

উঃ ৫টা আপনার ইচ্ছা মত।এমনি প্রাথমিক আবেদন যে কলেজে করেছেন ওটাতেও।

প্রশ্নঃ কতটি বিষয় চয়েস দেয়া যাবে ?

# যা সো করবে সব

উঃ যে কয়টা প্রদর্শিত হবে সব। চাইলে ১টাও।

প্রশ্নঃরিলিজ স্লিপে আবেদনের সময় কি কিছু লাগবে ?

উঃ না।আপনার প্রাথমিক আবেদন ফর্মটাতে পিন ও রোল দোকানদারকে দিবেন বাকিটা উনাদের কাজ।

প্রশ্নঃ রিলিজ ফর্মটা কি আবার কলেজে জমা দিতে হবে ?

উঃ না। কিছু করতে হবে না।বাসায় এনে যত্ন করে রেখে দিবেন। আর কোন টাকাও দেয়া লাগবে না কলেজে।

প্রশ্নঃ চান্স পেলে কি করবো?

উঃ উপরের দেয়া আছে কি কি কাগজ লাগবে।

প্রশ্নঃ রিলিজে চান্স পাইলে কি মাইগ্রেশ করা যাবে ? বা কলেজে পরে সাবজেক্ট পরিবর্তন করার কোনো নোটিশ দিবে ?

উঃ না না এবং না।

প্রশ্নঃযদি ১ম রিলিজে ভর্তি না হই ?

উঃ তবে ২য় রিলিজে আবেদন করবেন ঠিক ১ম রিলিজে যেভাবে আবেদন করেছেন। কিন্তু ২য় রিলিজে সিট খালি থাকা সাপেক্ষে দিবে।আবার ৩য় রিলিজের আশায় কেউ থাইকেন না। প্রশ্নঃ রিলিজ ফর্ম টা ভুল বা মত পরিবর্তন করি তাহলে নতুন আবেদন করতে পারবো ?

উঃ হ্যা ।তবে মাত্র ১বার।

প্রশ্নঃ কিভাবে করবো ?

উঃ দোকানদারকে বল্লেই হবে। যে সকল ওস্তাদি নিজ থেকে করবেন না। ফোন বা স্মার্ট ফোন থেকে আবেদন বা রিলিজ ফর্ম পূরন করতে যাবেনা।ফোনে সাবমিট করতে প্রচুর সময় লাগে সাথে আপনারা এটা জানেনো না।তাই ওস্তাদি করতে যায়া আবার বিপদ ডাকবেন না।

প্রশ্নঃ আবেদনের রেজাল্ট কবে দিবে ?

উঃ ১ম ও ২য় মেরিট,কোটা,১ম রিলিজ, ২য় রিলিজ প্রত্যেকটার রেজাল্ট আবেদনের শেষ সময় থেকে ১ থেকে ৭ দিনের মধ্যে দিয়ে থাকে।এবং পর্যায়ক্রমে ১টি ফলাফল প্রাকাশ ও ভর্তি শেষ হলে পরেরটির জন্য নোটিশ দেয়।কোনো ভাবেই একটি কার্যক্রম চলাকালীন অপরটির আবেদন সংক্রান্ত নোটিশ প্রকাশ করা হয় না।

Share This

0 Response to "জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্নাস ভর্তির নিয়ম A To Z প্রশ্নের উত্তর।"

Post a Comment

Popular posts